in

বিমানসংস্থাগুলো প্রতি মাসে শত কোটি টাকা আয় থেকে বঞ্চিত

দেশী-বিদেশী এয়ারলাইন্সগুলো মহামারী শুরুর পর থেকেই লোকসান গুনতে শুরু করেছে। প্রতিটা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট সংখ্যা দিন দিন কমতে থাকায় আর্থিক সঙ্কটও তাদের প্রকট হতে শুরু করেছে। তারপরও দেশী কোন এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠান বাঁচানোর লক্ষ্যে এখনো তাদের কর্মী ছাঁটাই করেনি।

এয়ারলাইন্স ও এভিয়েশন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার ভেতরে পরিস্থিতি যাই হোক, এখন পর্যন্ত এটুকু বলা যেতে পারে, ‘একটি এয়ারলাইন্স প্রতিষ্ঠান প্রতি মাসে কমপক্ষে শত কোটি টাকার আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
তাহলে কর্মচারীদের কিভাবে বেতন দেয়া হবে? তারপরও টিকে থাকার প্রাণান্তকর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

তারা মনে করছেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে অভ্যন্তরীণ সব রুট এবং আন্তর্জাতিক রুটগুলোতে যদি নিয়মিত ফ্লাইট চালানোর সুযোগ দেয়া হতো তাহলে বিমান সেক্টর ঘুরে দাঁড়াতে পারত।

সেই সুযোগটাই তারা সরকারের সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে আশা করছেন।

What do you think?

Written by Rabeya Shathy

Leave a Reply

Your email address will not be published.

ওমরাহ করতে গেলে মানতে হবে যেসব শর্ত

প্রায় দেড় বছর পর ওমরাহ করার সুযোগ বাংলাদেশিদের

দুই বছর দুপুরে ভাত খাননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা