দুবাই- এর ঐতিহ্যবাহী খাবার কী কী?

দুবাই হলো এই মুহূর্তে পৃথিবীর সেরা কয়েকটা দর্শনীয় স্থান গুলির মধ্যে অন্যতম। যেখানে লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রতিদিন জড়ো হয় তাদের এই অপরুপ সৌন্দর্য্য দেখে মুগ্ধ হওয়ার  জন্য। অসাধারন সমুদ্র সৈকত এর পাশাপাশি আপনি এখানে পাবেন জিভে পানি আসার মতো কিছু খাবার যা আপনাকে বার বার এই জায়গা আসতে আসতে বাধ্য করবে। আপনারা  অনেকেই হয়তো ঘুরতে পছন্দ করেন বা নতুন নতুন খাবার নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট করতে ভালোবাসেন। তাই এবার আপনাদের দুবাই এর কিছু ঐতিহ্যবাহী আঞ্চলিক খাবারের সাথে পরিচয় করিয়ে দেই যেগুলো আপনারা সেখানে গেলে অবশ্যই একবার চেখে দেখবেন।

স্টাফড ক্যামেল

এটি দুবাই এর সেরা কয়েকটি খাবারের মধ্যে একটি যার খ্যাতি সমগ্র দুনিয়া ব্যাপী। দুবাই এর মরুর বুকে একমাত্র খাবার হিসাবে একসময় এটি ব্যবহৃত হতো যা স্বাদে ও গুনে এককথায় অনন্য। এটিকে দুবাই এর সেরা অভিজাত খাবার হিসাবেও ধরা হয় যা আকারে অনেক বড় এবং দেখতে এককথায় চোখ জুড়ানো। অনেক বড় একটি ঐতিহ্যবাহী প্লেটে করে এই খাবার টিকে মেহমানদের  কাছে দেয়া হয় যা আপনি জীবনে প্রথম দেখে অবাক হয়ে যাবেন। এটি খেতে এককথায় অসাধারণ। স্বাদ অনেকটা আমাদের মাংস পুড়িয়ে খাবার মতো কিন্তু উটের মাংস এমনিতেই সুস্বাদু এবং এই ডিশ টিকে অনেকগুলি সালাদ নিয়ে সাজানো হয় যাতে দেখতে দারুন লাগে। আমি না করি মরুভূমিতে যেয়ে যদি উটের মাংস না খাওয়া  হয় তাহলে আপনার ভ্রমণ টাই  অসম্পূর্ণ থেকে গেলো এবং পরবর্তীতে আপনি নিজে নিজে আফসোস করবেন। কী যেন একটা মিস করে এসেছি! হালকা লেবু এবং সালাদ দিয়ে এটি খেতে এককথায় আপনাকে মন ভরিয়ে দিবে। এটির সাথে বিভিন্ন ধরণের গার্লিক নান বা রুমালি রুটি নিতে পারেন এবং সাথে বিভিন্ন ধরণের সস তো বোনাস  হিসাবে থাকছে। কী? জিভে পানি এসে গেলো? তাহলে আর দেরি না করে প্ল্যান টা ঠিক করে ফেলুন কবে যাওয়া যায়?

শর্মা

আধুনিক যুগে এটি নিশ্চিত একটি জিভে পানি এসে যাবার মতো খাবার। দেখতে অনেকটা পরোটার মতো রোল করা থাকে আর ভিতরে মাংস, সালাদ, এবং, সস সবকিছু মিক্স করা থাকে। মুখে দিলে  একদম নরম এবং এতে নানান রকমের স্বাদ একসাথে পাওয়া সম্ভব।

Shawarma
শর্মা

কিছুটা মিষ্টি, ঝাল এবং বিভিন্ন ধরণের সস এর স্বাদ একসাথে পাওয়া সম্ভব এই মেনু টিতে। আমাদের নরমাল ফাস্ট ফুড এর দোকানে এটি পাওয়া যায় কিন্তু এটি সম্পূর্ণ আলাদা আপনি নিঃসন্দেহে একটি নতুন ফ্লেভার পাবেন যা আপনি সাধারণ কোনো রেস্ট্যুরেন্টে এ কখনোই পাবেন না। দুবাইতে এটি সার্ভ করা হয় বিভিন্ন ধরণের আরব রুটি দিয়ে যা স্বাদে এবং পুষ্টি গুনে এককথায় অনন্য। এখন খাবারটি পৃথিবীর  বড় বড় সব শহরেও পাওয়া যায়।

মাহালাবিয়া

দুবাই এর একটি দুর্দান্ত মেনু হচ্ছে এই মেহলাবিয়া যা রোজ ওয়াটার দিয়ে বানানো হয়। স্বাস্থসম্মত এবং পুষ্টি গুন্ সমৃদ্ধ খাবার হিসাবে যা সারা দুনিয়ায় পরিচিত। খাবারের  পরে সাধারণত ডেজার্ট হিসাবে এটি বহুল ব্যবহৃত হয়ে আসছে অনেক দিন ধরে।

মাহালাবিয়া
মাহালাবিয়া

মুখে দেয়ার সাথে সাথেই আপনি একটি শীতল এবং স্নিগ্ধ অনুভূতি পাবেন যা আপনার হৃদয় কে শান্ত করে তুলবে মুহূর্তের মধ্যে। রাতের খাবারের পরে এটি বহুল প্রচলিত দুবাইতে যা আরবরা অনেকদিন ধরে খেয়ে আসছে। এই খাবারের প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে একদম বাচ্চা থেকে শুরু করে বৃদ্ধ পর্যন্ত সবাই অনায়েসে এটি গ্রহণ করতে পারবে এবং হজম এ কোনো ধরনের অসুবিধা হয়না। মুখে দিতেই  একধরণের শান্তি অনুভব করবেন আপনি যা সাধারণ যেকোনো শরবত থেকে আলাদা।

ঘুজি

এটিকে বলা যায় একধরণের আরবদের জাতীয় খাবার যা ভেড়ার মাংস দিয়ে তৈরী করা হয়। সমগ্র আরব আমিরাতে আপনি যেইখানেই যাবেন এটি দেখতে পাবেন যে ঘুজি খাওয়া হয় একটি উৎসবের মতো করে। সাধারণত ভেড়ার মাংস রোস্ট করে এটি তৈরী করা  হয় এবং সাথে বিভিন্ন হরণের মসলা মিশ্রিত থাকে। খাবারের ঘ্রান এবং স্বাদ আপনি একবার খেলে মুখে লেগে থাকার মতো। যা আপনাকে বার বার  এই আরব  মেনুটির কথা মনে করিয়ে দিবে।

বিভিন্ন ধরণের খাবারের জন্য বিখ্যাত এই দুবাই। বিশাল বিশাল অট্টালিকা আর আধুনিক সব সুযোগ সুবিধার সাথে আপনি পাবেন দারুন অব খাবার যা আপনার ভ্রমণ কে সত্যি অর্থবহ করে তুলবে। তো  আর দেরি কেন আজকেই তৈরী করে ফেলুন আপনার আগামী ছুটির পরিকল্পনা যেখানে সুন্দর একটি সময় কাটিয়ে আসা যাবে আরব আমিরাতের এই রাজধানীতে?

Category:

Share: